Home / উক্তি বাণী / সেরা উক্তি : গুণীজনের ৩০০ মহান বাণী

সেরা উক্তি : গুণীজনের ৩০০ মহান বাণী

উক্তি হলো অনুপ্রেরণার উৎস। গুণীজনের মহান বাণী বা উক্তি মানব সমাজকে এগিয়ে যেতে অনুপ্রেরণা যোগায়। মানুষের জীবন ক্ষণস্থায়ী কিন্তু মানুষ বেঁচে থাকে তার কর্মে। পৃথিবীর বরেণ্য ব্যক্তি বর্গ আজও মৃত্যুর পরেও বেঁচে আছেন তাঁদের কর্মকান্ডের জন্য। তাঁদের এসব কর্মকান্ড পর্যালোচনা করলে দেখা যায় তাঁরা তাঁদের জীবানাদর্শন ফুটিয়ে তুলেছেন তাঁদের বিভিন্ন বাণী বা উক্তি প্রদানের মাধ্যমে। এসব বাণী বা উক্তি উৎসগত বিভিন্নতা থাকতে পারে। হতে পারে এসব উক্তির উৎস কখনো কবিতা, কখনো নাটক,কখনো গল্প আবার কখনো বা উপন্যাস; তবে একথা বলার অপেক্ষা থাকে না উৎস যেটাই হোক না কেন এসব বাণীর উৎসের মুলে রযেছে গভীর জীবনবোধ যা মানুষের দৈনন্দিন জীবনে চিন্তা চেতনার উপর গভীর ভাবে প্রভাব ফেলতে সক্ষম। নিম্নে তেমনি কিছু জগদ্বিখ্যাত ব্যক্তির জগদ্বিখ্যাত উক্তি/ বাণী নিম্নে প্রকাশ করা হলো্ আশাকরি এসব বিখ্যাত ব্যক্তির বিখ্যাত বাণী/ বিখ্যাত ব্যক্তির বিখ্যাত উক্তি আপনাদের অনেক ভালো লাগার পাশাপাশি জীবন চলার পথে পাথেয় হয়ে থাকবে।

সেরা উক্তি, মহান বাণী :
০১। একজন ঘুমন্ত মানুষ আরেকজন ঘুমন্ত মানুষকে জাগাতে পারেনা।
-শেখ সাদী
০২। মানুষ প্রতিষ্ঠিত হওয়ার পরে যেই ব্যবহারটা করে সেটাই তার আসল চরিত্র।
-রেদোয়ান মাসুদ
০৩। ভুল বা অন্যায় করে যে অস্বীকার করে না বা তার জন্য অনুতপ্ত হয় না – তাকে কখনো ক্ষমা করা যায় না৷
– ইয়ং
০৪। যে নিজের উপর আস্থা রাখতে পারে না, সে কখনো প্রকৃতপক্ষে অন্য কারও ওপর আস্থা রাখতে পারে না৷
– কাদিনল দ্য য়েটজ
০৫। স্বপ্ন সেটা নয় যেটা মানুষ, ঘুমিয়ে ঘুমিয়ে দেখে; স্বপ্ন সেটাই যেটা পূরনের প্রত্যাশা, মানুষকে ঘুমাতে দেয় না।
– এ পি জে আব্দুল কালাম
০৬। এই বিশ্বে স্থায়ী কিছুই না, এমনকি আমাদের সমস্যাগুলোও না।
– চার্লি চ্যাপলিন
০৭। আমি সবসময় নিজেক সুখী ভাবি, কারণ আমি কখনো কারো কাছে কিছু প্রত্যাশা করি না, কারো কাছে কিছু প্রত্যাশা করাটা সবসময়ই দুঃখের কারণ হয়ে দাঁড়ায়।
-উইলিয়াম শেক্সপিয়র।
০৮। যেই দেশে দেশপ্রেমিকের চেয়ে জ্ঞানীগুণী বেশি জন্মায় সেই দেশে শান্তির চেয়ে অশান্তিই বেশি থাকে।
-রেদোয়ান মাসুদ
০৯। জীবনে দুটি দুঃখ আছে। একটি হল তোমার ইচ্ছা অপুর্ণ থাকা, অন্যটি হল ইচ্ছা পুর্ণ হলে আরেকটির প্রত্যাশা করা।
-জর্জ বার্নার্ড শ।
১০। আমাকে আমার সফলতা দ্বারা বিচার করো না, ব্যর্থতা থেকে কতবার আমি ঘুরে দাঁড়িয়েছি তা দিয়ে আমাকে বিচার করো।
-নেলসন ম্যান্ডেলা
১১। যথাস্থানে পা রেখেছ কিনা তা আগে নিশ্চিত হও, এরপর দৃঢ়ভাবে দাঁড়াও।
-আব্রাহাম লিঙ্কন

১২। যখন তোমার পকেট ভর্তি টাকা থাকবে তখন শুধুমাত্র তুমি ভুলে যাবে যে ‘তুমি কে’; কিন্তু যখন তোমার পকেট ফাঁকা থাকবে তখন সমগ্র দুনিয়া ভুলে যাবে ‘তুমি কে’!
-বিল গেটস।
১৩। বিদ্রোহী মানে কাউকে না মানা নয়। যা বুঝিনা তা মাথা উঁচু করে বুঝি না বলা।
– কাজী নজরুল ইসলাম
১৪। আমাদেরকে প্রচুর টাকা ঢালতে হবে আমাদের স্বভাবের পেছনে, যদি তা আমরা বদলাতে চাই ।
– বিল গেটস।
১৫। সফল মানুষ হওয়ার চেষ্টা করার থেকে বরং মূল্যবোধ সম্পন্ন মানুষ হওয়ার চেষ্টা করো।”
—অ্যালবার্ট আইনস্টাইন
১৬। কর্মহীন জীবন হতাশার কাফনে জড়ানো একটি জীবন্ত লাস।
-ডেল কার্নেগি
১৭। প্রাপ্তি আর প্রত্যাশার পার্থক্য হলো দুঃখ। তাই নিজের প্রত্যাশাটা একটু কমিয়ে ফেলুন, দেখবেন আপনার দুঃখও কমে গেছে।
-রেদোয়ান মাসুদ
১৮। ভুল না করলে সফলতা আসে না, কিন্তু একই ভুল বারবার করলে সাফল্য অধরাই থেকে যায়।
—জর্জ বার্নাড শ
১৯। একজন পুরুষ সর্বদা অর্থ উপার্জনের ধান্ধায় থাকে আর একজন মহিলা তার দেহগঠন নিয়ে ব্যস্ত থাকে।
–বাটলার।
২০। সব বড় মানুষেরাই তাঁদের সাফল্যের জন্য কোন অসাধারণ নারীর সহযোগিতা এবং উৎসাহের ঋণের কথা বলেছেন।
-ও হেনরি।
২২। পৃথিবীতে কোনো মেয়েই ছয়টা গাড়ীর মালিক ছেড়ে সিক্স প্যাক ওয়ালা ছেলেদের সাথে যাবে না, তাই জিমে যাওয়া বন্ধ করে কাজে যাও।
– রবার্ট মুগাবে
আরও পড়ুন… বাবাকে নিয়ে সেরা উক্তি

২৩। মেয়েদের চোঁখে দুই রকমের অশ্রু থাকে, একটি দুঃখের অপরটি ছলনার।
-পিথাগোরাস।
২৪। অর্থ দিয়ে জীবন কেনা যায় না৷
– বব মার্লে।
২৫। প্রতিটি মানুষ চাঁদের মতো, যার একটা অন্ধকার দিক রয়েছে, কিন্ত সেদিক সে কাউকে দেখাতে চায় না।
– মার্ক টোয়েইন।
২৬। আপনি যদি গরীব হয়ে জন্ম নেন তাহলে এটা আপনার দোষ নয়, কিন্তু যদি গরীব থেকেই মারা যান তবে সেটা আপনার দোষ।
– বিল গেটস
২৭। অধিকার ছাড়িয়া দিয়া অধিকার রাখিতে যাইবার মত এমন বিড়ম্বনা আর না।
-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর।
২৮। ধার্মিকতা আর ধর্মান্ধতা এক জিনিস নয়। ধার্মিকতা মানুষকে আলোর পথে নিয়ে যায় আর ধর্মান্ধতা মানুষকে ধ্বংসের দিকে ঠেলে দেয়। এ দেশের মানুষকে আমি ধার্মিক বলব না কারণ এ দেশের বেশিরভাগ মানুষই ধর্মান্ধ।
-রেদোয়ান মাসুদ
২৯। যার টাকা আছে তার কাছে আইন খোলা আকাশের মত, আর যার টাকা নেই তার কাছে আইন মাকড়ষার জালের মত!
– সক্রেটিস।
৩০। বিরাট পশুপালের মাঝেও শাবক তার মাকে খুঁজে পায়। অনুরূপ যে কাজ করে অর্থ সবসময় তাকেই অনুসরণ করে।
– চাণক্য।
৩১। কখনো ভেঙে পড়ো না। পৃথিবীর যা কিছু হারিয়ে যায়, অন্য কোন রূপে সেটি ঠিকই আবার ফিরে আসে জীবনে।
-মাওলানা জালাউদ্দিন রুমি।
৩২। আপনার দর্শন ও স্বপ্নকে নিজের সন্তানের মত লালন করুন কারণ এগুলোই আপনার চূড়ান্ত অর্জনের প্রতিচিত্র হয়ে উঠবে।
-নেপোলিয়ন হিল
৩৩। অর্থ যেখানে নাই ভালোবাসা সেখানে দুর্লভ।
– স্যার টমাস ব্রাউন।

৩৪।একজন গড়পড়তার মানুষ কথা বলে। একজন ভাল মানুষ ব্যাখ্যা করে। একজন উর্ধ্বতন মানুষ কাজ করে দেখায়। একজন সেরা মানুষ অন্যদেরকে প্রেরণা যোগায় যাতে তারা নিজেরাই কাজকে নিজের মত করে দেখতে পারে।
-হার্ভি ম্যাকে
৩৫। চিন্তার প্রতিফলন ঘটে স্বভাব বা প্রকৃতিতে। যদি কেউ মন্দ অভিপ্রায় নিয়ে কথা বলে বা কাজ করে দুঃখ তাকে অনুগমন করে। আর কেউ যদি সুচিন্তা নিয়ে কথা বলে বা কাজ করে সুখ তাকে ছায়ার মত অনুসরন করে।
-গৌতম বুদ্ধ।
৩৬। অর্থ যেখানে নাই ভালোবাসা সেখানে দুর্লভ।
– স্যার টমাস ব্রাউন।
৩৭। বাবা হলেন একটি বাড়ির ছাদ, যে নিজে পুড়ে সন্তানদের ছায়া দেয় কিন্তু মুখ ফুটে কিছু বলে না।
-রেদোয়ান মাসুদ
৩৮। পুরুষেরা মেয়েদের খেলার সামগ্রী আর মেয়েরা শয়তানের খেলার সামগ্রী! মেয়েরা সন্তান উৎপাদনের যন্ত্র বৈ কিছু নয়!
-নেপোলিয়ান।
৩৯। নারী হচ্ছে টি-ব্যাগের মত। গরম পানিতে দেয়ার আগে তুমি বুঝতে পারবে না সে কতটা শক্তিশালী।
-এলিয়ানর রুজভেল্ট।
৪০। আপনি জীবনে যা চান তা আপনি পেতে পারেন যদি আপনি অন্যদেরকে তাদের চাওয়া নিশ্চিত করতে সাহায্য করে থাকেন।
-জিগ জিগলার
৪১। সবচেয়ে নির্বোধ নারীও একজন বুদ্ধিমান পুরুষকে সামলাতে পারে কিন্তু নির্বোধকে সামলাতে প্রয়োজন বুদ্ধিমতী নারী।
-রুডইয়ার্ড কিপলিং।
৪২। নারী ভালোবাসার জন্য, জানার জন্য নয় l
-অস্কার ওয়াইল্ড।
৪৩। একবার পরীক্ষায় কয়েকটা বিষয়ে আমি ফেল করেছিলাম কিন্তু আমার বন্ধু সব বিষয়েই পাশ করে। এখন সে মাইক্রোসফটের একজন ইঞ্জিনিয়ার আর আমি মাইক্রোসফটের প্রতিষ্ঠাতা।
– বিল গেটস
৪৪। যদি আমাকে একটি সমস্যা সমাধানের জন্য এক ঘন্টা বেঁধে দেয়া হয়, আমি ৫৫ মিনিট সমস্যাটা নিয়ে চিন্তা করি এবং বাকি ৫ মিনিট সমাধানটা নিয়ে চিন্তা করি।
– অ্যালবার্ট আইনস্টাইন
৪৫। একজন আহত ব্যক্তি তার যন্ত্রনা যত সহজে ভুলে যায়, একজন অপমানিত ব্যক্তি তত সহজে অপমান ভোলে না।
– জর্জ লিললো
৪৬। মানুষের মন যেদিনই ক্লান্ত হয় সেদিনই তার মৃত্যু হয়।
-রেদোয়ান মাসুদ
৪৭। আকাশের দিকে তাকাও। আমরা একা নই। পুরো মহাবিশ্ব আমাদের প্রতি বন্ধুত্বসুলভ। যারা স্বপ্ন দেখে এবং কাজ করে শুধুমাত্র তাদেরকেই শ্রেষ্ঠটা দেওয়ার জন্য চক্রান্তে লিপ্ত এই বিশ্ব।
– এ পি জে আব্দুল কালাম
৪৮। নিজের লক্ষ্য ও স্বপ্নকে আপনার আত্মার সন্তান হিসেবে লালন করুন, এগুলোই আপনার চূড়ান্ত সাফল্যের নকশা হবে
– নেপোলিওন হিল
৪৯। আপনি যে নতুন একটি কাজ হাতে নিয়েছেন তার উপর ভিত্তি করেই সত্যিকারের সিদ্ধান্তের মাপকাঠি ধরা হয়। যদি হাতে কোন কাজ না থাকে, তাহলে আপনি এখনও আপনার সত্যিকারের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করতে পারেননি।
-টনি রবিনস
৫০। বাঁচার মতো বাঁচতে জানলে জীবনটা অসম্ভব রোমাঞ্চকর একটি অভিযান, আর একদম ঝুঁকিহীন জীবন সে তো মুরগির খোঁয়াড়ে ধুঁকে ধুঁকে টিকে থাকা।
– অ্যানোনিমাস
৫১। তোমরা আমাকে শিক্ষিত মা দাও, আমি তোমাদের শিক্ষিত জাতি দেবো।
-নেপোলিয়ন বোনাপার্ট।
৫২। হতাশা একটি বিলাসিতা। হতাশার জায়গাটি আজ থেকে দখল করুক কাজ শেষের তৃপ্তিমাখা ক্লান্তি।
– অ্যানোনিমাস
৫৩। আপনার জন্য যা নির্ধারণ করা হয়েছে, তা যদি দুই পর্বতের নিচে ও থাকে তবু ও তা আপনার কাছে পৌঁছে যাবে। আর আপনার জন্য যা নির্ধারণ করা হয় নি, তা যদি দুই ঠোঁটের মাঝে ও থাকে তবু ও তা আপনার কাছে পৌঁছবে না!
-ইমাম গাজ্জালী
৫৪। যে পুরুষ কখনো দুঃখকষ্ট ভোগ করেনি এবং পোড় খাওয়া মানুষ নয় মেয়েদের কাছে সে তেমন বাঞ্ছনীয় না । কারণ দুঃখকষ্ট পুরুষকে দরদি ও সহনশীল করে তোলে।
– ডেনিস রবিনস

আরও পড়ুন… মাকে নিয়ে সেরা উক্তি 

৫৫। বিশ্ব যখন এগিয়ে চলেছে, আমরা তখনো বসে বিবি তালাকের ফতোয়া খুঁজি কোরান-হাদিস চষে।
-কাজী নজরুল ইসলাম।
৫৬। ব্যর্থ হওয়া মানে হেরে যাওয়া নয়, ব্যর্থতা নতুন করে আবার শুরু করার প্রেরণা। হাল ছেড়ে দেওয়া মানেই হেরে যাওয়া।
– অ্যানোনিমাস
৫৭। ভবিষ্যতে যার কাছ থেকে তুমি সবচেয়ে বড় কষ্টটি পাবে, আজ সে তোমার সবচেয়ে কাছের কোনো একজন।
-রেদোয়ান মাসুদ
৫৮। একশত মূর্খ পুত্রের চেয়ে একটি গুণী পুত্র বরং ভাল। একটি চন্দ্রই অন্ধকার দূর করে, সকল তারা মিলেও তা পারে না।
-চাণক্য।
৫৯। অসহায়কে অবজ্ঞা করা উচিত নয়, কারণ মানুষ মাত্রেই জীবনের কোন না কোন সময় অসহায়তার শিকার হবে।
– গোল্ড স্মিথ
৬০। মেয়েমানুষের এরকম হয়, ওরকম হয়, সব রকম হয়, শুধু মনের মত হয় না।
-মানিক বন্দ্যোপাধ্যায়।
৬১। পৃতিবীতে যত হিংস্র প্রানী আছে তার মধ্যে মেয়েরা অন্যতম।
-মেনানডির।
৬২। সবার সাথে তাল মিলিয়ে যে কথা বলে সে ব্যাক্তিত্বহীন।
– মার্ক টোয়াইন।
৬৩। বধু তোমার গরবে গরবিনী নাম রুপসী তোমার রুপে হেন মনে হয় ও দুটি চরণ সদা নিয়ে রাখি বুকে। -জ্ঞানদাস।
৬৪। পুরুষতান্ত্রিক সভ্যতার শ্রেষ্ঠ শহীদের নাম মা।
-হুমায়ূন আজাদ।
৬৫। যে জাতি তার বাচ্চাদের বিড়ালের ভয় দেখিয়ে ঘুম পাড়ায়, তারা সিংহের সাথে লড়াই করা কিভাবে শিখবে? যারা পানিতে ডুবে যাওয়ার ভয়ে তার সন্তানকে ডোবায় নামতে দেন না, কিভাবে সে সন্তান আটলান্টিক পাড়ি দিবে?
-শেরে বাংলা এ. কে. ফজলুল হক।
৬৬। একটি সুখের সংসার ধ্বংস করার জন্য শয়তান যতগুলো অস্ত্র আবিস্কার করেছে তার মধ্যে মারাত্নক অস্ত্র স্ত্রীর ঘ্যানর ঘ্যানর
-ডেল ক্যার্নেগি।

৬৭। নারী দাসী বটে, কিন্তু সেই সঙ্গে নারী রাণীও বটে।
-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর্।
৬৮। একজন প্রথম শ্রেণীর কর্মকর্তার প্রয়োজন হয়ে থাকার চেয়ে একজন চতুর্থ শ্রেণীর কর্মচারির প্রিয়জন হওয়া অনেক সম্মানের, গৌরবের।
-রেদোয়ান মাসুদ
৬৯। প্রত্যেকের বসবাসের জন্য একটি বাড়ির প্রয়োজন, তবে একটিঅ্যান্টনি লাইকোসিওন সহায়ক পরিবারই একটি বাড়ি তৈরি করে ।
-অ্যান্টনি লাইকোসিওন।
৭০। যে নদীর গভীরতা বেশি, তার বয়ে যাওয়ার শব্দ কম।
-জন লিভগেট
৭১। অন্য একটি শহরে সুখের একটি বিশাল, প্রেমময়, যত্নশীল, ঘনিষ্ঠ পরিবার রয়েছে ।
-জর্জ বার্নস।
৭২। সেই যথার্থ মানুষ যে জীবনের পরিবর্তন দেখেছে এবং পরিবর্তনের সাথে নিজেও পরিবর্তিত হয়েছে।
– বায়রন
৭৩। ভীরুরা তাদের প্রকৃত মৃত্যুর আগেই বহুবার মরে, কিন্তূ সাহসীরা জীবনে মাত্র একবারই মৃত্যুর স্বাদ গ্রহণ করে থাকে।
-শেকসপীয়ার
৭৪। মানুষ মরে গেলে পচে যায়, বেঁচে থাকলে বদলায়, কারণে-অকারণে বদলায়।
-মুনীর চৌধুরী।
৭৫। একটিমাত্র পুষ্পিত সুগন্ধ বৃক্ষে যেমন সমস্ত বন সুবাসিত হয়, তেমনি একটি সুপুত্রের দ্বারা সমস্ত কুল ধন্য হয়।
-চাণক্য।
৭৬। অপমান হলো একটি তীর, যতই ভুলতে চাইবেন ততই হৃদয়ের গভীরে বিদ্ধ হবে।
– রেদোয়ান মাসুদ
৭৭। অনেক কিছুই আমাদের বদলে দিতে পারে, তবে আমাদের শুরু এবং শেষ পরিবারের সাথেই হয়ে থাকে ।
– অ্যান্টনি ব্র্যান্ড।
৭৮। যখন একা থাকার অভ্যাস হয়ে যায় ঠিক তখনি সৃষ্টিকর্তা কিছু মানুষের সন্ধান দেন। যখন তাদেরকে নিয়ে ভালো থাকার অভ্যাস হয়ে যায়, ঠিক তখনি আবার একা হয়ে যেতে হয়।
-জর্জ বার্নার্ড শ।
৭৯। গিন্নির কাজটি হচ্ছে সবার সেরা চাকরি। অন্য সকল চাকরির অস্তিত্ব টিকে আছে শুধু একটা উদ্দেশ্যে- সেটা হলো ঐ সেরা চাকরিটাকে সমর্থন দিয়ে যাওয়া।
– সি. এস. লুইস।
৮০। পরিবার মানেই হলো, কেউ পিছনে পড়ে যায় না বা ভুলে যায় না ।
-ডেভিড ওগডেন স্টিয়ার্স।
৮১। আমরা সবাই পাপী; আপন পাপের বাটখারা দিয়ে; অন্যের পাপ মাপি !!
-কাজী নজরুল ইসলাম।
৮২। আমার অন্তরতম অন্তরে, যেখানে আমি একেবারে একা, সেখানে তোমার ঝর্ণাধারা কখনও শুকোবার নয়।
– পার্ল এস বাক।
৮৩। প্রতারণা হচ্ছে অন্তরের কালোত্ব, মুখমন্ডলের মলিনতা।
-কাফাভী।
৮৪। পৃথিবীতে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো- পরিবার ও ভালোবাসা ।
-জন উডেন।
৮৫। বিশ্বে শান্তি ছড়িয়ে দেবার জন্য আপনার করনীয় কি? নিজের ঘরে ফিরে যান এবং আপনার পরিবারকে ভালোবাসা দিন।
-মাদার তেরেসা।
৮৬। তুমি, শুধু তুমি কাছে থাকলে আমি বুঝি আমি বেঁচে আছি। অন্য পুরুষরা দাবি করে, তারা নাকি পরীর দেখা পেয়েছে। আমি দেখেছি শুধু তোমাকে, আর সেটুকুই আমার পক্ষে যথেষ্ট।
-জর্জ মুর।
৮৭। প্নপূরণই জীবনের একমাত্র লক্ষ্য নয়। তাই বলে, স্বপ্নকে ত্যাগ করে নয়, তাকে সঙ্গে নিয়ে চলো। স্বপ্ন ছাড়া জীবন অর্থহীন।
-ব্রায়ান ডাইসন
৮৮। স্বপ্ন শুধু হাসায় না, কাদায়ও।
-রেদোয়ান মাসুদ
৮৯। জীবনকে এক পেয়ালা চায়ের সাথে তুলনা করা যেতে পারে। যতই তৃপ্তির সাথে আমরা তা পান করি ততই দ্রুত তলার দিকে অগ্রসর হতে থাকি।
-ক্রিনেট
৯০। যারা আমাকে সাহায্য করতে মানা করে দিয়েছিল আমি তাদের প্রতি কৃতজ্ঞ। কারন তাদের ‘না’ এর জন্যই আজ আমি নিজের কাজ নিজে করতে শিখেছি।
– আইনস্টাইন
৯১। আপনার সন্তানকে উপদেশ দেবার সেরা উপায়টা আমি খুঁজে পেয়েছি। আর সেটা হচ্ছে, আপনার সন্তান কী চায় সেটা আগে খুঁজে বের করুন, তারপর ওকে সেই কাজ করার উপদেশ দিন।
-হ্যারি এস. ট্রুম্যান।
৯২। যারা বন্ধুদের অপমান করে, বন্ধুদের অপমানিত হতে দেখে কাপুরুষের মতো নীরব থাকে তাদের সঙ্গে সংসর্গ করো না।
-সিনেকা
৯৩। সবচেয়ে জরুরি কথাটিই বলা সবচেয়ে কঠিন, কারণ শব্দের বাঁধনে কথার অর্থ খাটো হয়ে আসে।
– স্টিফেন কিং।
৯৪। শিক্ষার শেকড়ের স্বাদ তেঁতো হলেও এর ফল মিষ্টি।
-এরিস্টটল
৯৫। যে ইচ্ছাপূর্বক বন্ধুকে ঠকায়, সে তার খোদাকেও ঠকাতে পারে ।
-লাভাটাব
৯৬। টিয়া পাখির মতো মুখস্ত করে বড় বড় সার্টিফিকেট অর্জন করে বড় বড় চাকরি পাওয়াকে শিক্ষা বলে না, শিক্ষা হচ্ছে সেটা যা একজন মানুষের ভিতরের কুশিক্ষাকে দূর করে সমাজের পরিবর্তনে এগিয়ে আসার উৎসাহ যোগায়।
-রেদোয়ান মাসুদ
৯৭। প্রেমের আনন্দ থাকে স্বল্পক্ষণ কিন্তু বেদনা থাকে সারাটি জীবন।
– রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর।
৯৮। প্রথম বিয়ে হচ্ছে বুদ্ধির কাছে কল্পনার জয় আর দ্বিতীয়বিয়ে হচ্ছে অভিজ্ঞতার কাছে আশার জয়।
-স্যামুয়েল জনসন।
৯৯। যে ভালোবাসা পেল না, যে কাউকে ভালোবাসতে পারল না, সংসারে তার মতো হতভাগা কেউ নেই।
– কিটস্।
১০০।তোমাকে যে ভালোবাসি তা কেবল তুমি কেমন মানুষ তা দেখে নয়, তোমার সংস্পর্শে আমি যেমনটা হয়ে উঠি তার আকর্ষণেও।
-এলিজাবেথ ব্যারেট ব্রাউনিং।
১০১। হৃদয়ের সবটুকু দিয়ে তোমার কাছে মিনতি করছি, তোমার মন আর আমাদের মধ্যেকার ভালবাসার সবটুকু আমাকে জানতে দিও।
– সম্রাট অষ্টম হেনরি।
১০২। পুরুষের লক্ষ্য রাখা উচিত যত দিন বেশী তারা অবিবাহিত জীবনযাত্রা করতে পারে।
– জর্জ বার্নাডস
১০৩। তুমি যদি কাউকে ভালোবাস,তবে তাকে ছেড়ে দাও।যদি সে তোমার কাছে ফিরে আসে,তবে সে তোমারই ছিল।আর যদি ফিরে না আসে,তবে সে কখনই তোমার ছিল না।
– রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর।
১০৪। হৃদয়ের সবটুকু দিয়ে তোমার কাছে মিনতি করছি, তোমার মন আর আমাদের মধ্যেকার ভালবাসার সবটুকু আমাকে জানতে দিও।
-সম্রাট অষ্টম হেনরি।
১০৫। ভালবাসা তালাবদ্ধ হ্রদয়ের দরজা মুহূর্তে খুলে দেয় ।
– টমাস।
১০৬। দুটি জিনিস ছাড়া মানুষ সব লুকাতে পারে। এ দুটি হচ্ছে যদি সে মাতাল হয় আর যদি প্রেমে পড়ে।
– এনাট ফেন্স।
১০৭। অতিরিক্ত স্বাধীনচেতা মেয়েগুলো ব্যক্তিগত জীবনে নিজেও সুখী হয় না, পরিবারকেও সুখী হতে দেয় না।
-রেদোয়ান মাসুদ
১০৮। প্রেম মানুষকে শান্তি দেয়, কিন্তু স্বস্তি দেয় না।
– বায়রন
১০৯। কোন কিছুকে ভালোবাসা হলো সেটি বেঁচে থাক তা চাওয়া।
-কনফুসিয়াস।
১১০। প্রেমের ব্যাপারে যদি কেউ জয়ী হতে চায়, তাহলে সে ক্ষেত্রে জয়ী হওয়ার একমাত্র অস্ত্র হলো পলায়ন করা।
– নেপোলিয়ান।
১১১। হ্যাঁ এবং না কথা দুটো সবচেয়ে পুরনো এবং সবচেয়ে ছোট। কিন্তু এ কথা দুটো বলতেই সবচেয়ে বেশি ভাবতে হয়।
-পীথাগোরাস
১১২। তুমি যদি কাউকে ভালোবাস,তবে তাকে ছেড়ে দাও।যদি সে তোমার কাছে ফিরে আসে,তবে সে তোমারই ছিল।আর যদি ফিরে না আসে,তবে সে কখনই তোমার ছিল না।
-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর।
১১৩। ভালোবাসায় পতনের জন্য কোনোভাবেই আমরা মহাকর্ষ-অভিকর্ষকে দায়ী করতে পারি না।
– অ্যালবার্ট আইনস্টাইন।
১১৪। বড় প্রেম শুধু কাছেই টানে না; ইহা দুরেও ছুড়ে ফেলে দেয়।
– শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়।
১১৫। প্রেমে পড়লে বোকা বুদ্ধিমান হয়ে ওঠে, বুদ্ধিমান বোকা হয়ে যায়।
– স্পুট হাসসুন।সুইফট।
১১৬। ভালোবাসা হচ্ছে একটা আদর্শ ব্যাপার আর বিয়ে হচ্ছে বাস্তব। আদর্শ ও বাস্তবতার দ্বন্দ্ব তাই কখনো নিষ্পত্তি হবে না।
– গ্যেটে।
১১৭। প্রেমের পরশে প্রত্যেকেই কবি হয়ে উঠে।
-প্লেটো।
১১৮। যার যেটা নেই সে কখনও সেটার মূল্য বুঝে না, একমাত্র সেই ব্যক্তিই সেটার মূল্য বুঝে যার কোনো জিনিস পূর্বে ছিল কিন্তু এখন নেই।
-রেদোয়ান মাসুদ
১১৯। বড় প্রেম শুধু কাছেই টানে না; ইহা দুরেও ছুড়ে ফেলে দেয়।
– শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়।
১২০। প্রেম মানুষকে সংযমী , চরিত্রবান ,বলবান , সাধনার দৃঢ়বান করে, যুবককে সংগ্রামশীল , মসত্ ও গৌরবশীল করে।
-লুৎফর রহমান।
১২১। যে ভালোবাসা পেল না, যে কাউকে ভালোবাসতে পারল না, সংসারে তার মতো হতভাগা কেউ নেই।
– কিটস্।
১২২। নারীর প্রেমে মিলিনের গান বাজে, পুরুষের প্রেমে বিচ্ছেদের বেদনা।
–রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর।
১২৩। প্রেম নারীর লজ্জাশীলতাকে গ্রাস করে, পুরুষের বাড়ায়
-জ্যা পল বিশার।
১২৪। প্রেমে পড়লে বোকা বুদ্ধিমান হয়ে উঠে, বুদ্ধিমান বোকা হয়ে যায়।
-স্কুট হাসসুন।
১২৫। যখন কোন পুরুষ কোন নারীকে ভালবাসে,তখন সে তার জন্য সব কিছু করতে পারে।কেবল তাকে ভা লবেসে যেতে পারেনা
– অস্কার ওয়াইল্ড।
১২৬। যাকে ভালবাস তাকে চোখের আড়াল করোনা।
– বঙ্কিম চন্দ্র চট্টোপাধ্যায়।
১২৭। মা হলো স্নেহের ভান্ডার যা কখনও নিঃশেষ হয় না।
-রেদোয়ান মাসুদ
১২৮। প্রেম একটি জলন্ত সিগারেট, যার শুরুতে আগুন এবং শেষ পরিণতি ছাই।
– বার্নাডস।
১২৯। ধোয়া, টাকা আর প্রেম কিছুতেই চেপে রাখা যায় না ঠিক ফুটে বেরুবেই।
-শংকর।

১৩০। সোনায় যেমন একটু পানি মিশিয়ে না নিলে গহনা মজবুত হয় না, সেইরকম ভালবাসার সঙ্গে একটু শ্রদ্ধা, ভক্তি না মিশালে সে ভালবাসাও দীর্ঘস্থায়ী হয় না।
– নিমাই ভট্টাচার্য ক্রোধ।
১৩১। ভালোবাসা পাওয়ার চাইতে ভালোবাসা দেওয়াতেই বেশি আনন্দ।
-জর্জ চ্যাপম্যান।
১৩২। ভালবাসা যা দেয় তার চেয়ে বেশী কেড়ে নেয়।
– টেনিসন।
১৩৩। প্রেম প্রকৃতির দ্বিতীয় সূর্য
-জর্জ চ্যাপম্যান।
১৩৪। ভালবাসা তালাবদ্ধ হ্রদয়ের দরজা মুহূর্তে খুলে দেয় ।
– টমাস
১৩৫। বন্ধুত্ব টাকার মতো, রক্ষা করার চাইতে তৈরি করা সহজ।
– বাটলার।
১৩৬। ঘৃণা অন্ধ, প্রেমের মতই
-টমাস ফুলার।
১৩৭। প্রত্যেক নতুন জিনিসকেই উৎকৃষ্ট মনে হয়। কিন্তু, বন্ধুত্ব যতই পুরাতন হয়,ততই উৎকৃষ্ট ও দৃঢ় হয়।
-এরিস্টটল।
১৩৮। যে ভালোবাসা পেলো না, যে কাউকে ভালোবাসতে পারলো না সংসারে তার মতো হতভাগা কেউ নেই।
– কীটস্।
১৩৯। জীবন চলার পথে বাঁধা আসতেই পারে তাই বলে থেমে যাওয়ার কোনো অবকাশ নেই। যেখানে বাঁধা আসবে সেখান থেকেই আবার শুরু করতে হবে।
-রেদোয়ান মাসুদ
১৪০। যার আছে অনেক বন্ধু তার কোন বন্ধু নেই।
-অ্যারিস্টটল।
১৪১। দৃষ্টিভঙ্গির সমতা বন্ধুত্ব গড়ে তোলে।
-ডেমোক্রিটাস।
১৪২। বন্ধুত্ব হচ্ছে ডানা বিহীন ভালোবাসা।
-লর্ড।
১৪৩। আপনি যখন বিপদে জড়িত থাকেন। তখন বুঝতে পারবেন আপনার প্রকৃত বন্ধু কারা।
-এলিজাবেথ টেলর।
১৪৪। আমাদের বন্ধুদেরকে অবিশ্বাস করা হল তাদের দ্বারা প্রতারিত হওয়ার চেয়ে অধিক লজ্জাকর।
-কনফুসিয়াস।
১৪৫। যদি থাকে বন্ধুর মন গাং পাড় হইতে কতক্ষন।
-জীবনানন্দ দাশ।
১৪৬। অন্ধকারে একজন বন্ধুর সঙ্গে হাঁটা, আলোতে একা হাঁটার চেয়েও ভালো।
-হেলেন কিলার।
১৪৭। বন্ধুত্ব একমাত্র সিমেন্ট, যা সবসময় পৃথিবীকে একত্র রাখতে পারবে।
-উইড্রো উইলসন।
১৪৮। সার্টিফিকেট বাড়ছে মানেই এই নয় যে দেশ ভারমুক্ত হচ্ছে, এ দেশে সার্টিফিকেট বাড়ছে মানে শিক্ষিত বেকারের সংখ্যাটাও ভারী হচ্ছে।
-রেদোয়ান মাসুদ
১৪৯। বন্ধু বা বন্ধুত্ব হওয়ার সময়, ধীরে ধীরে হওয়া ভালো । আর বন্ধুত্ব হয়ে গেলে প্রতিনিয়ত ভাবে মেলামেশা করো।
-সক্রেটিস।
১৫০। আমার শ্রেষ্ঠ বন্ধু সে-ই যে আমার কল্যাণ কামনা করে কেবল আমার কল্যাণেরই জন্যে।
-অ্যারিস্টটল।
১৫১। বন্ধুদের মধ্যে সবকিছুতেই একতা থাকে।
-প্লেটো।
১৫২। যদি তুমি মানুষকে বিচার করতে যাও, তাহলে ভালবাসার সময় পাবে না।
-মাদার তেরেসা।
১৫৩। আস্থাই বন্ধুত্বের একমাত্র বন্ধনসূত্র।
-সাইরাস।
১৫৪। সত্যিকারের বন্ধুত্ব গাছের ধীরে ধীরে বেড়ে ওঠার মতো বাড়ে।
-জর্জ ওয়াশিংটন।
১৫৫। বন্ধুত্ব করার সময় ধীর গতির হও। আর বন্ধুত্ব হয়ে গেলে প্রতিনিয়ত ভাবে পরিচর্যা করো।
-সক্রেটিস।
১৫৬। আমাদের রহস্যময়তার পরীক্ষণে প্রাপ্ত, সবচেয়ে সৌন্দর্যময় জিনিসগুলো হলো শিল্প, বিজ্ঞান এবং বন্ধুত্ব।
-অ্যালবার্ট আইনস্টাইন।
১৫৭। তুমি যদি সত্যিকার অর্থেই শান্তি চাও, তোমাকে তোমার শত্রুদের সাথে কাজ করতে হবে, তাহলেই সে তোমার সহকর্মী হতে পারবে।
-নেলসন ম্যান্ডেলা।
১৫৮। প্রকৃত প্রেমিক হলেই ভালোবাসা পাওয়া যাবে না, ভালোবাসা পেতে হলে আপনাকে হতে হবে প্রকৃত অভিনেতাও।
-রেদোয়ান মাসুদ
১৫৯। কাউকে সারা জীবন কাছে পেতে চাও? তাহলে প্রেম দিয়ে নয় বন্ধুত্ব দিয়ে আগলে রাখো। কারণ প্রেম একদিন হারিয়ে যাবে কিন্তু বন্ধুত্ব কোনদিন হারায় না
-উইলিয়াম শেক্সপিয়র।
১৬০। বন্ধু কি? এক আত্মার দুইটি শরীর।
-এরিস্টটল।
১৬১। সবকিছুর শেষে আমরা আমাদের শত্রুদের বাক্য মনে রাখবো না, কিন্তু বন্ধুর নীরবতা মনে রাখবো।
-মার্টিন লুথার কিং।
১৬২। বন্ধুদের মধ্যে সব কিছুতেই একতা থাকে।
-প্লেটো।
১৬৩। আমাদের রহস্যময়তার পরীক্ষণে প্রাপ্ত সবচেয়ে সৌন্দর্যময় জিনিসগুলো হলো শিল্প, বিজ্ঞান এবং বন্ধুত্ব।
-অ্যালবার্ট আইনস্টাইন।
১৬৪। দুঃখ নিজেই নিজের খেয়াল রাখতে পারে, কিন্তু আনন্দের পুরোটা উপভোগ
করতে চাইলে অবশ্যই তোমাকে তা কারো সঙ্গে ভাগ করে নিতে হবে।
-মার্ক টোয়েন।
১৬৫। সত্যিকারের বন্ধুরা তোমাকে সম্মুখ দিয়ে ছুরিকাঘাত করবে।
-অস্কার ওয়াইল্ড।
১৬৬। দুঃখ নিজেই নিজের খেয়াল রাখতে পারে, কিন্তু আনন্দের পুরোটা উপভোগ করতে চাইলে অবশ্যই তোমাকে তা কারো সঙ্গে ভাগ করে নিতে হবে।
-মার্ক টোয়েন।
১৬৭। দুর্ভাগ্যবান তারাই যাদের প্রকৃত বন্ধু নেই।
– এরিস্টটল।
১৬৮। আমার ভালো বন্ধুদের কথা মনে করে আমি যতোটা সুখী, অন্য কোনো ভাবে ততোটা সুখী হতে পারিনা।
-উইলিয়াম শেক্সপিয়ার।
১৬৯। কাউকে ভুলতে চাইলে তাকে ক্ষমা করে দিন, না হলে জীবনেও তাকে ভুলতে পারবেন না।
-রেদোয়ান মাসুদ
১৭০। জীবনকে যেমন মৃত্যুকেও তেমনি স্বাভবিক বলে মেনে নিতে হবে
-শহীদুল্লাহ্ কায়সার।
১৭১। অনেক কিছু ফিরে আসে, ফিরিয়ে আনা যায়, কিন্তু সময়কে ফিরিয়ে আনা যায় না
-আবুল ফজল।
১৭২। বাস্তবতা নিছক একটি মায়া, যদিও এটি খুব স্থায়ী।
১৭৩। অভাব যখন দরজায় এসে দাঁড়ায়, ভালোবাসা তখন জানালা দিয়ে পালায় ।
-শেক্সপিয়র।
১৭৪। যে স্বপ্ন আপনি একা দেখেন তা কেবল একটি স্বপ্ন।আর যে স্বপ্ন আপনি সবাইকে নিয়ে দেখেন তা হলো বাস্তবতা।
-জন লেনন।
১৭৫। ভাগ্য হচ্ছে এমন একটা চিরন্তন সত্য যা ব্যক্তিভেদে ভিন্ন হয়। যেটা যার কপালে লেখা নেই সেটার
১৭৬। বাস্তবতাকে যথেষ্ট কল্পনা দিয়ে মারানাে যায় ।
-মার্ক টোয়েন।
১৭৭। সুখের মুহুর্তগুলি কবুল করুন , প্রেম করুন এবং প্রেম করুন ! এটাই পৃথিবীর একমাত্র বাস্তবতা , অন্য সব বাকোমি।
-লিও টলস্টয়।
১৭৮। জীবন সমস্যা সমাধানের নয় , অভিজ্ঞতার বাস্তবতা।
-সারেন।
১৭৯। মানবজাতি খুব বেশি বাস্তবতা বহন করতে পারে না।
–টি এস এলিয়ট।
১৮০। পৃথিবীতে কঠিন বাস্তবের মধ্যে একটি বাস্তব হলো- মানুষ যখন সাফল্যের দ্বারপ্রান্তে এসে পৌঁছায় আর তখনই তার প্রিয় মানুষটি হারিয়ে যায়।
-রেদোয়ান মাসুদ
১৮১। একটি ভাল বিবাহের চেয়ে প্রেমময়, বন্ধুত্বপূর্ণ এবং মনোমুগ্ধকর সম্পর্ক, কথোপকথন বা সঙ্গ নেই।
-মার্টিন লুথার।
১৮২। বিবাহ স্বর্গ নরক কোনটাই নয়, এটি কেবল শোধনের ব্যবস্থা ।
-আব্রাহাম লিংকন।১
১৮৩। ছেলেরা বিয়ে করে কারণ তারা জীবন নিয়ে ক্লান্ত আর মেয়েরা করে কারণ হয়তো তারা কৌতূহলী বা বিমর্ষ।
-অস্কার ওয়াইল্ড।
১৮৪। আমার সবচেয়ে উজ্জ্বল কীর্তি আমার স্ত্রীকে আমাকে বিয়ে করতে প্ররোচিত করতে সক্ষম হবার যোগ্যতা ছিল।
-উইনস্টন চার্চিল।
১৮৫। বিয়ের মাধ্যমে দুটো জিনিস ঘটে থাকে এক হলো যদি আপনি ভালো বউ পান তবে আপনি ভালো জীবন পাবেন আর যদি খারাপ বউ পান তবে দার্শনিক হয়ে যাবেন।
-সক্রেটিস।
১৮৬। আঘাত হলো এক ধরনের জ্বালানী।
-রেদোয়ান মাসুদ
১৮৭। একটি ভাল বিবাহ হ’ল যা ব্যক্তি এবং যেভাবে তারা তাদের ভালবাসা প্রকাশের পরিবর্তন ও বিকাশের অনুমতি দেয়।”
-পার্ল এস বাক।
১৮৮। ভালোবাসা দিয়ে ভালোবাসা না পেলে তার জীবন দুঃখের ও জরতার ।
-কাজী নজরুল ইসলাম।
১৮৯। একটি সুখী বিবাহ একটি দীর্ঘ কথোপকথন যা সর্বদা স্বল্প মনে হয়।
-আন্দ্রে মুরোইস।
১৯০। প্রেমের অকাল মূত্যু নেই বলে শোকের মধ্যে প্রেম চিরন্তন হয়ে যায়।
-মানিক বন্দ্যোপাধ্যায়।
১৯১। সুখী বিবাহের গোপন বিষয় হ’ল যদি আপনি চার দেয়ালের মধ্যে কারও সাথে শান্তিতে থাকতে পারেন, আপনি সন্তুষ্ট হন কারণ আপনি যেটিকে ভালোবাসেন সে আপনার নিকটে, হয় উপরে বা নীচে, বা একই ঘরে, এবং আপনি যে উষ্ণতা অনুভব করেন যা আপনি প্রায়শই খুঁজে পান না, তারপরেই প্রেমটিই এটি।
-ব্রুস ফোরসিথ।
১৯২। অসুস্থ লোকের চিন্তা ভাবনাও অসুস্থ থাকে।
-বেন জনসন
১৯৩। পুরো দুনিয়াটাই একটা রঙ্গমঞ্চ, আর প্রতিটি নারী ও পুরুষ সে মঞ্চের অভিনেতা; এই মঞ্চে প্রবেশ পথও আছে আবার বহির্গমণ পথও আছে, জীবনে একজন মানুষ এই মঞ্চে অসংখ্য চরিত্রে অভিনয় করেন।
– শেক্সপিয়র।
১৯৪। সংগ্রামই জীবন, সংগ্রাম হীনতা মৃত্যু/গীতা পাঠ অপেক্ষা ফুটবল খেলা ভাল/জগতে সর্বদাই দাতার আশ্রয় গ্রহন করো।
–স্বামী বিবেকানন্দ।
১৯৫। সত্যিকারের প্রেমের পথটি কখনও মসৃণ হয়নি।
– উইলিয়াম শেক্সপিয়র ।
১৯৬। একটা ভুল মানুষকে হয়তো অনেক কাঁদায় কিন্তু মনে রাখতে হবে জীবনে এমন কিছু ভুল আছে যা ভবিষ্যতে হাজারটা ভুল থেকে বাঁচায়।
-রেদোয়ান মাসুদ
১৯৭। দুঃখ নিজেই নিজের খেয়াল রাখতে পারে, কিন্তু আনন্দের পুরোটা উপভোগ করতে চাইলে অবশ্যই তোমাকে তা কারো সঙ্গে ভাগ করে নিতে হবে।
-মার্ক টোয়েন।
১৯৮। যদি তোমারে নাহি পরে মনে ভেবে নিও সে তো আসিবে না ফিরে।
– রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর।
১৯৯। শিক্ষার কাজ হল মানুষকে জীবন ও জীবিকার উপযোগী করে তোলা।
-হার্বাট স্পেনসার।
২০০। আমি বলবনা আমি ১০০০ বার হেরেছি, আমি বলবো যে আমি হারার ১০০০ টি কারণ বের করেছি।
-টমাস আলভা এডিসন।
২০১।এরা সুখের লাগি চাহে প্রেম, প্রেম মেলে না, শুধু সুখ চলে যায় ”
-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর।
২০২। কেমনে রাখি আঁখি বারি চাপিয়া, প্রাতে কোকিল কাঁদে নীশিথে পাপিয়া।
-কাজী নজরুল ইসলাম।
২০৩। প্রত্যেককে বিশ্বাস করা বিপদজনক, কিন্তু কাউকে বিশ্বাস না করা আরো বেশী বিপদজনক।
-আব্রাহাম লিংকন।
২০৪। কেহ বিশ্বাস করে, কেহ করে না। যে বিশ্বাস করে সেও সত্য-মিথ্যা যাচাই করে না, যে অবিশ্বাস করে সেও না। বিশ্বাস-অবিশ্বাসের প্রশ্নটা নির্ভর করে মানুষের খুশির উপর।
-মানিক বন্দ্যোপাধ্যায়।
২০৫। আপনি যখন উপরের দিকে উঠতে থাকবেন তখন চারদিক থেকে আপনার কাছের মানুষগুলো দূরে সরে যাবে। আবার যখন আপনি শীর্ষে পৌঁছে যাবেন তখন চারদিক থেকে সবাই আপনার বন্ধু হতে থাকবে।
-রেদোয়ান মাসুদ
২০৬। আমি ৮২ জনকে নিয়ে বিপ্লব শুরু করি। তা যদি আমাকে আবার করতে হয়, তবে আমি ১০ বা ১৫ জনকে নিয়ে করব এবং সম্পূর্ণ বিশ্বাস নিয়ে করব। সংখ্যায় আপনি কত কম, সেটা কোনো বিষয় নয়, যদি আপনার বিশ্বাস ও কর্মপরিকল্পনা থাকে।
-ফিদেল কাস্ত্রো।
২০৭। বৃদ্ধেরা সব কিছুই বিশ্বাস করে, মধ্যবয়সী লোক সবকিছুতে সন্দেহ প্রকাশ করে আর কম বয়সী লোকেরা সবই জানে ।
-অস্কার ওয়াইল্ড।
২০৮। যে বিজ্ঞানকে অল্প জানবে সে নাস্তিক হবে, আর যে ভালো ভাবে বিজ্ঞানকে জানবে সে অবশ্যই ঈশ্বরে বিশ্বাসী হবে।
-ফ্রান্সিস বেকন।
২০৯। দৃঢ় বিশ্বাস, অনবরত প্রচেষ্টা এবং বিশ্বজয়ী প্রেম-জীবনযুদ্ধ এই হলো মানুষের হাতিয়ার ।
-আল্লামা ইকবাল।
১১০। বিশ্বাস জীবনকে গতিময়তা দান করে, আর অবিশ্বাস জীবনকে দুর্বিষহ করে তোলে ।
-জন মিল্টন।
২১১। মানুষ হয়তো সব সময় তোমার মুখের কথা বিশ্বাস করবে না কিন্তু তোমার কাজে তারা সবসময় বিশ্বাস করবে ।
– হিটলার।
২১২। আমার যাহা ইচ্ছা তাহাই করিতে পারি, তোদের বিশ্বাস নাই, কাজেই ফলও হয় না।
-লোকনাথ ব্রহ্মচারী।
২১৩। আমি কখনো নিজের বিশ্বাসের জন্য প্রাণ দেব না, কারণ সেটি ভুল হতে পারে ।
-বার্ট্রান্ড রাসেল।
২১৪। মন অনেক কিছুই চাইবে কিন্তু তা বিবেক দিয়ে বিচার করবে। তাহলেই তুমি বুঝবে কোনটা তোমার করা উচিত আর কোনটা করা উচিত নয়।
-রেদোয়ান মাসুদ
২১৫। যার কোন সমস্যা নেই তাকে কখনো বিশ্বাস করবে না ।
-হিটলার।
২১৬। কোন কিছুই পূর্বনির্ধারিত নয়, মনের বিশ্বাস থাকে আপনি অনেক দূর পর্যন্ত এগিয়ে যেতে পারবেন ।
-স্টিফেন হকিং।] ২১৭। মনের দিক থেকে যে দুর্বল কর্মক্ষেত্রেও সে দুর্বল।
– জন রে।
২১৮। বিশ্বাস হলো তাই যখন আপনি পুরো সিড়ি না দেখেও প্রথম পদক্ষেপ নেন।
-মার্টিন লুথার কিং।
২১৯। বিশ্বাস হলো হৃদয়ের সেই জ্ঞান যার জন্য কোনো প্রমাণ লাগে না।
-খালিল জিবরান।
২২০। চিকিৎসকেরা যে ভুল করেন তা হল তারা মনের চিকিৎসা না করে শরীর সারাতে চান। যদিও মন আর শরীর অবিচ্ছেদ্য তাই আলাদা করে চিকিৎসা করা উচিত নয়।
– প্লেটো।
২২১। দুর্বল দেহ মনকে দুর্বল করে দেয়।
– রুশো ।
২২২। বিশ্বে দুট শক্তি রয়েছে – এগুলো হচ্ছে অসি ও মন। কিন্তু পরিনামে এ দুয়ের দ্বন্দ্বে মনের কাছে অসি শেষ পর্যন্ত পর্যদুস্ত হয়।
– নেপোলিয়ন বোনাপার্ট।
২২৩। সব মানুষের মধ্যে একটি খোকা থাকে যে মনের কবিত্ব, মনের কল্পনা, মনের সৃষ্টিছাড়া অবাস্তবতা, মনের পাগলামিকে লইয়া সময়ে-অসময়ে এমনিভাবে খেলা করিতে ভালবাসে।
– মানিক বন্দ্যোপাধ্যায়।
২২৪। যাকে তাকে গছিয়ে দেওয়ার নামই বিবাহ নয় ! মনের মিল না হলে বিবাহ করাই ভুল।
– শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায় ।
২২৫। ভুল থেকেই মানুষ শিখে কিন্তু সে ভুলটি যেন না হয় জীবনের শেষ ভুল। কারণ এমনও হতে পারে আপনি যেই সুযোগটি হাতছাড়া করে ফেলেছেন সেই সুযোগটিই ছিল আপনার জীবনের শেষ সুযোগ।
-রেদোয়ান মাসুদ
২২৬। প্রাণের অবস্থাটি খুব কোমল করিতে হইবে। কাদামাটির ন্যায় মনকে গঠন করা চাই। তাহা হইলে ঐ মনের দ্বারা অনেক সুন্দর নতুন জিনিস প্রস্তুত হইতে পারে।
– স্বামী দয়ানন্দ অবধুত।

২২৭। মনের বাসনাকে দূরীভূত করা উচিত নয়। এই বাসনাগুলোকে গানের গুঞ্জনের মতো কাজে লাগানো উচিত।
– চাণক্য।
২২৮। সন্দেহপ্রবণ মন ভালো কাজের অন্তরায়।
— রবার্ট ব্রাউনিং ।
২২৯। মন খাঁটি হলে পবিত্র স্থানে গমন অর্থহীন।
– চাণক্য।
২৩০। ভালো কাজ সবসময় কর। বারবার কর। মনকে সবসময় ভালো কাজে নিমগ্ন রাখো। সদাচরণই স্বর্গসুখের পথ।
– গৌতম বুদ্ধ।
২৩১। সন্দেহপ্রবণ মন ভালো কাজের অন্তরায়।
– রবার্ট ব্রাউনিং।
২৩২। শক্ত মন আলোচনা করে ধারনা নিয়ে, গড়পড়তা মন আলোচনা করে ঘটনা নিয়ে, দুর্বল মন মানুষ নিয়ে আলোচনা করে।
-সক্রেটিস।
২৩৩। পরিপূর্ণ আনন্দের সময় মানুষের মন ভিন্ন ভিন্ন দিকে ধায় না। একটা আনন্দ নিয়ে সে পড়ে থাকতে ভালবাসে।
-সৈয়দ মুজতবা আলী।
২৩৪। মনে পাপ থাকার এই একটা লক্ষণ। মনে হয়, সকলে বুঝি সব জানে।
– মানিক বন্দ্যোপাধ্যায়।
২৩৫। দুনিয়াতে মানুষের মনই বোধহয় সবচেয়ে দূর্গম ও দুর্জ্ঞেয়।
– মুহম্মদ আবদুল হাই।
২৩৬। প্রেম হলো জ্বলন্ত সিগারেটের মতো, জার আরাম্ভ হলো অগ্নি দিয়ে আর শেষ পরিণতি ছাইয়েতে।
-বার্নার্ডশ।
২৩৭।মনের সৌন্দর্যকে যে অগ্রাধিকার দেয় সংসারে সেই জয়লাভ কর।
-উইলিয়াম শেক্সপিয়র।
২৩৮। রাজনীতি হলো দেশ শাসনে উপযুক্ত ব্যক্তি নির্বাচনের মূল হাতিয়ার কিন্তু যদি সমাজের ভালো মানুষেরা রাজনীতিতে আসতে ভয় পায় তাহলে দেশের ধ্বংস অনিবার্য।
-রেদোয়ান মাসুদ
২৩৯। কেউ যদি তোমার ভালোবাসার মূল্য না বুঝে তবে নিজেকে নিঃস্ব ভেব না। জীবনটা এত তুচ্ছ না।
-বসন্ত বাউরি।
২৪০। একজন মানুষকে সত্যিকারভাবে জানার উপায় হচ্ছে তার স্বপ্নটা জানা।
-হুমায়ূন আহমেদ।
২৪১। আমার ধর্ম কোন ভোগোলিক সীমার মধ্যে আবদ্ধ নেই। আমার ধর্মের ভিত্তি হল ভালবাসা এবং অহিংসা।
-মহাত্মা গান্ধী।
২৪২। তুমি আমাকে শিক্ষিত মা দাও, আমি তোমাকে শিক্ষিত জাতি দিবো।
-নেপোলিয়ন বোনাপার্ট।
২৪৩। মানুষকে ভালোবাসলে মানুষও ভালোবাসে। যদি সামান্য ত্যাগ স্বীকার করেন, তবে জনসাধারণ আপনার জন্য জীবন দিতেও পারে।
-বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ।
২৪৪। তিন রকম দোয়া নি:সন্দেহে কবুল হয়। মজলুমের দোয়া,মুসাফিরের দোয়া আর সন্তানের জন্য পিতা-মাতার দোয়া।
-মহানবী হজরত মুহম্মদ (স.)।
২৪৫। যার মা আছে সে কখনই গরীব নয়।
-আব্রাহাম লিংকন।
২৪৬। আমার দেখা সবচেয়ে সুন্দরী মহিলা হলেন আমার মা। মায়ের কাছে আমি চিরঋণী। আমার জীবনের সমস্ত অর্জন তারই কাছ থেকে পাওয়া নৈতিকতা, বুদ্ধিমত্তা আর শারীরিক শিক্ষার ফল।
-জর্জ ওয়াশিংটন।
২৪৭। পাখি স্বাধীনভাবে উড়তে পারে ততক্ষণই যতক্ষণ তার ডানা মুক্ত থাকে কিন্তু সেই ডানায় যখন তার বাচ্চা থাকে তখন সে আর স্বাধীনভাবে উড়তে পারে না। তাকে খুব সাবধানে উড়তে হয়।
-রেদোয়ান মাসুদ
২৪৮। মা যেমন তাঁর নিজ পুত্রকে নিজের জীবন দিয়ে রক্ষা করে তেমনি সকল প্রাণীর প্রতি অপরিমেয় মৈত্রীভাব পোষণ করবে।
– গৌতম বুদ্ধ।
২৪৯। বাক্যবাণ ও বিচ্ছেদবাণ সহ্য করিতে পারিলে মৃত্যুকেও হটাইয়া দেওয়া যায়।
– লোকনাথ ব্রহ্মচারী।
২৫০। মানুষের কিসের এত অহংকার ।যার শুরু একফোটা রক্তবিন্দু দিয়ে আর শেষ হয় মৃত্তিকায়।
-হযরত আলি রাঃ।
২৫১। জম্মিলে মরিতে হবে অমর কে কোথা কবে? চিরস্থির কবে নীর হায়রে জীবন নদে?
– মাইকেল মধুসূদন দত্ত।
২৫২। বন্ধুরা হাততালি দাও, কেননা মজা শেষ হয়ে গেছে৷
– লুডভিগ ফান বেটোফেন।
২৫৩। পিপড়ে আর বুনোরা আগন্তুককে অক্কা পাইয়ে ছাড়ে।
– বারট্রান্ড রাসেল।
২৫৪। মৃত্যু নিয়ে আমি ভীত নই। কিন্তু মরার জন্য তাড়াও নেই আমার। তার আগে করার মতো অনেক কিছু আছে আমার।
-স্টিফেন হকিং।
২৫৫। এই মৃত্যু উপত্যকা আমার দেশ …
– নবারুণ ভট্টাচার্য।
২৫৬। জেগে ওঠো, সচেতন হও এবং লক্ষ্যে না পৌঁছা পর্যন্ত থেমো না।
– স্বামী বিবেকানন্দ
২৫৭। মানুষ মরে গেলে পচে যায়, বেঁচে থাকলে বদলায়, কারনে-অকারনে বদলায় ।
— মুনীর চৌধুরী
২৫৮। ভীতুরা মরার আগে হাজার বার মরে। আর সাহসীরা একবারই মরে।
— উইলিয়াম শেক্সপিয়ার।
২৫৯। মন নিজের, নিয়ন্ত্রণ অন্যের।
-রেদোয়ান মাসুদ
২৬০।সুসংহত মনের জন্য মৃত্যু হল পরবর্তী পর্বের দু:সাহসিক কাজ।
– জে .কে . রাউলিং।
২৬১। এমনভাবে অধ্যয়ন করবে, যেন তোমার সময়াভাব নেই, তুমি চিরজীবী । এমন ভাবে জীবন যাত্রা নির্বাহ করবে, যেন মনে হয় তুমি আগামি কালই মারা যাবে ।
-মহাত্না গান্ধী
২৬২। মৃত্যু নিয়ে আমি ভীত নই, কিন্তু মরার জন্য তাড়াও নেই আমার, তার আগে করার মত অনেক কিছু আছে আমার ।
– স্টিফেন হকিং।
২৬৩। মৃত্যু মানে আলো নেভানো নয়; এটি কেবল প্রদীপ জ্বালিয়ে দেওয়া, কারণ ভোর হয়েছে।
-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর।
২৬৪। জীবনকে যেমন, মৃত্যুকেও তেমনি স্বাভাবিক বলে মেনে নিতে হবে ।
– শহিদুল্লাহ কায়সার।
২৬৫। সব দুঃখের মূল এই দুনিয়ার প্রতি অত্যাধিক আকর্ষণ।
– হযরত আলী (রাঃ)
২৬৬। তোমার আগে যদি আমার মৃত্যু হয় অথবা আমার আগে তোমার দেহান্তর, তবু যেন আমরা বেদনার সীমানা না বাড়াই কারন বেচে থাকার মত বিপুল আর তো কিছু নেই ।
— পাবলো নেরুদা
২৬৭।মানুষের মৃত্যু হলে সে পচে যায় আর জীবন থাকলে প্রতি নিয়তই বদলায়।
-মুনির চৌধুরী।
২৬৮। মৃত্যুই আমাদের সবার গন্তব্য । কেউ কখনো এটা থেকে পালাতে পারে নি । এবং সেটাই হওয়া উচিৎ, কারন মৃত্যুই সম্ভবত জীবনের অন্যতম বড় আবিষ্কার । এটা জীবনে পরিবর্তনের এজেন্ট । এটা পুরনোকে ঝেড়ে নতুনের জন্য জায়গা করে দেয় ।
— স্টিভ জব
২৬৯। মৃত্যুর মতো সত্য আর আশার মতো মিথ্যা নেই।
— হযরত আলী রাঃ
২৭০।জোর করে শান্তি রাখা যায় না, এইটা কেবল অনুধাবন করার মাধ্যমেই অর্জিত হতে পারে।
-অ্যালবার্ট আইনস্টাইন।
২৭১। কেবল শৃঙ্খলহীন হওয়া নয়, বরং স্বাধীন হওয়া মানে শ্রদ্ধা এবং অন্যের স্বাধীনতা বৃদ্ধির সাথে বসবাস।
-নেলসন ম্যান্ডেলা।
২৭২। একটি হাসি শান্তির শুরু।
-মাদার তেরেসা।
২৭৩। অন্ধকার অন্ধকারকে তাড়িয়ে দিতে পারে না; কেবল আলোই তা করতে পারে। ঘৃণা ঘৃণা ঘটাতে পারে না; কেবল প্রেমই তা করতে পারে।
-মার্টিন লুথার কিং(জুনিয়র)।
২৭৪। প্রত্যেক আত্মদমনের চেষ্টা দমনের চেষ্টা না হইলে মান্তির আবির্ভাব সম্ভবপর হয না।
-দীনেশ চন্দ্র সেন।
২৭৫। আধুনিক সভ্যতা চারপাশকে সুন্দর করলেও মানুষের মনকে কুলষিত করেছে।
-রেদোয়ান মাসুদ
২৭৬। শান্তি কখনোই শক্তি প্রয়োগ করে আনা যায় না, সেটি একমাত্র সম্ভব হয় বোঝাপারার মাধ্যমে।
-অ্যালবার্ট আইনস্টাইন
২৭৭। আসল ও স্থায়ী বিজয় যুদ্ধের নয়, শান্তির।
– ওয়াল্ডো এমারসন।

২৭৮। শিক্ষার শেকড়ের স্বাদ তেঁতো হলেও এর ফল মিষ্টি।
-এরিস্টটল।
২৭৯। যে ব্যক্তি জাতির মনে শান্তি দিতে পারে সে নিঃসন্দেহে মহামানব।
-ওয়াল পোল।
২৮০। যে কখনও ভুল করেনা। সে নতুন কিছু করার চেষ্টা করে না।
-অ্যালবার্ট আইনস্টাইন।
২৮১। পৃথিবীতে শান্তি ফিরিয়ে আনার একমাত্র উপায় হ’ল আমাদের নিজের জীবন কে শান্তিপূর্ণ করে তুলতে শেখা।
-গৌতম বুদ্ধ।
২৮২। বড় বড় নামকরা স্কুলে বাচ্চারা বিদ্যার চাইতে অহংকার টা বেশি শিক্ষা করে।
-আহমদ ছফা।
২৮৩। শিক্ষার প্রথম কাজ হলো কৌতুহলের শিকে ছেঁড়া।
-আইভরি ব্রাউন।
২৮৪। যেই শিক্ষা গ্রহন করে যেই শিক্ষার গুণে গুনান্নিত হয়ে ছেলে মেয়ে সাজে, মেয়ে ছেলে সাজতে পছন্দ করে, ঐ শিক্ষাকে জ্ঞানীরা শিক্ষা না জাতীর জন্য বিষ বলে গন্য করেছেন।
-আল্লামা ইকবাল।
২৮৫। আমরা যতই অধ্যয়ন করি ততই আমাদের অজ্ঞানতাকে আবিষ্কার করি।
-শেলী।
২৮৬। ভুল করে কিছু ক্ষতি না হলে কারো কখনো ভুল ভাঙ্গে না, একই ভুল বারবার করে।
– রেদোয়ান মাসুদ
২৮৭। আমলা নয় মানুষ সৃষ্টি করুন।
-বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান।
২৮৮। মন বিজ্ঞান হল আত্মার বিজ্ঞান।
-অ্যারিস্টটল।
২৮৯। শিক্ষা হচ্ছে মানুষের মধ্যে ইতোমধ্যে থাকা উৎকর্ষের প্রকাশ।
-স্বামী বিবেকানন্দ।
২৯০। শিক্ষার চূড়ান্ত ফল হচ্ছে সহনশীলতা।
-হেলেন কেলার।
২৯১। বিষ থেকে সুধা, নোংরা স্থান থেকে সোনা, নিচ কারো থেকে জ্ঞান এবং নিচু পরিবার থেকে শুভলক্ষণা স্ত্রী – এসব গ্রহণ করা সঙ্গত।
-চাণক্য।
২৯২। জানা সত্ত্বেও মেনে না চলার চেয়ে না জানাই ভালো।
-টেনিসন।
২৯৩। যদি তুমি তোমার কাজকে স্যালুট কর, দেখো তোমায় আর কাউকে স্যালুট করতে হবে না। কিন্তু তুমি যদি তোমার কাজকে অসম্মান কর, অমর্যাদা কর, ফাঁকি দাও, তাহলে তোমায় সবাইকে স্যালুট করতে হবে।
– এ পি জে আব্দুল কালাম
২৯৪। মানুষের সুখী হওয়ার জন্যে সবচেয়ে বেশি দরকার বুদ্ধির – এবং শিক্ষার মাধ্যমে এর বৃদ্ধি ঘটানো সম্ভব।
– বাট্রাণ্ড রাসেল।
২৯৫। কথার আঘাতে মানুষ যতটুকু কষ্ট পায় তার চেয়ে কথা না বলাতে হাজারগুণ বেশি কষ্ট পায়।
-রেদোয়ান মাসুদ
২৯৬। জ্ঞানীরা ধনসঞ্চয় করেন অর্থপিশাচদের মুখাপেক্ষী না হওয়ার জন্য।
-এরিস্টটল।
২৯৭। শিখন হল অনুশীলন ভিত্তিক আচরনের পরিবর্তন।
-বার্নাড।
২৯৮। যখন একা থাকার অভ্যাস হয়ে যায় ঠিক তখনি সৃষ্টিকর্তা কিছু মানুষের সন্ধান দেন। যখন তাদেরকে নিয়ে ভালো থাকার অভ্যাস হয়ে যায়, ঠিক তখনি আবার একা হয়ে যেতে হয়।
-জর্জ বার্নার্ড শ।
২৯৯। সমগ্র বিজ্ঞান দৈনন্দিনের একটি পরিশোধন চিন্তা ছাড়া আর কিছুই না।
-অ্যালবার্ট আইনস্টাইন।
৩০০। শিক্ষার উদ্দেশ্য হল সামগ্রিকভাবে বাঁচার প্রস্তুতি।
-হার্বাট স্পেনসার্

বাছাইকৃত সেরা উক্তি বা বাণী-গুলো পড়ে আপনাদের বিন্দুমাত্র উপকারে আসলেও আমাদের এই প্রচেষ্টা সার্থক হবে বলে মনে করি। সুতরাং এই মহান বাণী বা উক্তি-গুলো আপনাদের বন্ধুদের মাঝেও ছড়িয়ে দিন।

Check Also

অনুপ্রেরণামূলক উক্তি, প্রেরণামূলক ১০০ বাণী

অনুপ্রেরণামূলক উক্তি, অনুপ্রেরণামূলক উক্তি: প্রেরণামূলক উক্তি মানব সমাজে খুবই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। মানব জীবন ...

DMCA.com Protection Status